Our Concern
Ruposhi Bangla
Hindusthan Surkhiyan
Radio Bangla FM
Third Eye Production
Anuswar Publication
Ruposhi Bangla Entertainment Limited
Shah Foundation
Street Children Foundation
July 23, 2024
Homeযুক্তরাষ্ট্রপারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

পারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

পারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, হরমুজ প্রণালি এবং অন্যান্য কৌশলগত নৌপথে ইরানের সাম্প্রতিক সময়ে ‘আপত্তিজনক’ কর্মকাণ্ড বেড়ে যাওয়ায় পারস্য উপসাগরে তাদের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। কেননা তেহরানের এ অনাকাঙ্ক্ষিত কর্মকাণ্ডে উপসাগরীয় পরিস্থিতি অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই ওয়াশিংটন এই প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজে জন কিরবি বলেন, পারস্য উপসাগরে ইরানের হুমকি বৃদ্ধি পাওয়ায় এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক জলসীমায় নৌযান চলাচলের অধিকারের চর্চায় থাকা বাণিজ্যিক জাহাজগুলোতে বারবার হামলা চালিয়েছে তেহরান। এক সপ্তাহ আগে উপসাগরীয় জলসীমায় দ্বিতীয় তেলবাহী ট্যাংকার জব্দ করে ইরান। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ট্যাংকার দুটির মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। ২০১৯ সালের পর থেকে উপসাগরীয় জলসীমায় ইরান কর্তৃক বাণিজ্যিক জাহাজ জব্দ বা হামলার ঘটনা বেড়েছে। বাহরাইনভিত্তিক মার্কিন নৌবাহিনীর পঞ্চম বহর ৩ মে বলেছিল, পানামার পতাকাবাহী তেলবাহী ট্যাংকার নিওভিকে জব্দ করেছে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী। হরমুজ প্রণালি অতিক্রমের সময় এটিকে জব্দ করা হয়। কিরবি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র এমন পদক্ষেপের দৃঢ় নিন্দা জানায় যা মধ্যপ্রাচ্যে বাণিজ্যিক জাহাজ চলাচলের জন্য হুমকি ও হস্তক্ষেপ করে। তিনি বলেন, হরমুজ প্রণালিসহ মধ্যপ্রাচ্যের জলসীমায় কোনো বিদেশি শক্তিকে নৌযান চলাচলকে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে দেবে না ওয়াশিংটন।

কিরবি বলেন, এখানে নৌচলাচলের স্বাধীনতা রক্ষায় আমাদের প্রয়োজনীয় যা যা করার দরকার তা-ই আমরা করব। এক্ষেত্রে ইরানের কোনো বৈরী আচরণকে বরদাস্ত করা হবে না। তারা কোনোভাবেই অন্য দেশের জাহাজ এভাবে আটকে দিতে পারে না। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই। তিনি বলেন, এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার যুক্তিযুক্ত কোনো কারণ ইরানের নেই। তাই আমরা আজ দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে বলতে পারি, পারস্য উপসাগরের পরিস্থিতির উন্নয়নে আমরা সিরিজ পদক্ষেপ গ্রহণ করব। মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ড এ ব্যাপারে সামনে আরো বিশদ তথ্য জানাবে। সামনের দিনগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক মেরিটাইম সিকিউরিটি কনস্ট্রাক্টের সঙ্গে তার সমন্বয় ও আন্তঃকার্যক্ষমতা বাড়াবে। এর মাধ্যমে এই অঞ্চলে বণিক শিপিংকে রক্ষা করতে দুই বছর আগে যে ১১টি দেশ নিয়ে জোট গঠিত হয়েছিল তা দৃঢ়ভাবে কাজ করবে।

Share With:
Rate This Article
No Comments

Leave A Comment