Our Concern
Ruposhi Bangla
Hindusthan Surkhiyan
Radio Bangla FM
Third Eye Production
Anuswar Publication
Ruposhi Bangla Entertainment Limited
Shah Foundation
Street Children Foundation
July 23, 2024
Homeআন্তর্জাতিকফ্রান্সে দ্বিতীয় দফার ভোট, সংখ্যাগরিষ্ঠতার লড়াইয়ে অতি ডানরা

ফ্রান্সে দ্বিতীয় দফার ভোট, সংখ্যাগরিষ্ঠতার লড়াইয়ে অতি ডানরা

ফ্রান্সে দ্বিতীয় দফার ভোট, সংখ্যাগরিষ্ঠতার লড়াইয়ে অতি ডানরা

অতি ডানপন্থীদের উত্থানের নির্বাচনে চূড়ান্ত দফায় ভোট দিচ্ছেন ফ্রান্সের মানুষ। প্রথম দফায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া অতি ডানপন্থী ন্যাশনাল র‍্যালি (আরএন) এই নির্বাচনে জয়ের আশা করছে। অন্যদিকে তাদের ঠেকাতে ক্ষমতাসীন মধ্যপন্থীদের সঙ্গে একাট্টা হয়েছে বামপন্থীরা। স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

ছোট শহরগুলোতে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত, আর বড় শহরে রাত ৮টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। রবিবার রাতেই ফলাফল জানা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফ্রান্সে প্রায় চার কোটি ৯৩ লাখ ভোটার রয়েছেন।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথম অতি ডানপন্থী সরকার?
সবশেষ জরিপের ফলাফল অনুযায়ী, নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও ন্যাশনাল র‍্যালি দ্বিতীয় দফার নির্বাচনেও সর্বোচ্চ আসনে জয়ী হবে বলে আভাস মিলছে।

বামপন্থীদের শক্তিশালী ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত আসনগুলোতেও প্রথম দফার ভোটে তাদের শক্তিশালী অবস্থান ছিল।

শেষ পর্যন্ত মারিন ল্য পেনের আরএন জয়ী হলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথমবারের মতো ফ্রান্সে সরকার গঠনের সুযোগ পাবে অতি ডানপন্থীরা।

এদিকে আগাম পার্লামেন্ট নির্বাচন ঘোষণা করলেও প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ তার দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন বলে আগেই জানিয়েছিলেন। সে ক্ষেত্রে বিরোধীরা জয়ী হলে রাষ্ট্র পরিচালনায় বড় ধরনের বাধার মুখে পড়তে পারেন তিনি।

প্রথম দফায় যা হয়েছে
৩০ জুন প্রথম দফার ভোটে আরএন ও সমমনা দলগুলো ৩৩ শতাংশ ভোট পেয়েছে। বামপন্থী নিউ পপুলার ফ্রন্ট ২৮ শতাংশ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁর নেতৃত্বে মধ্যপন্থী এনসেম্বল ব্লক প্রায় ২০ শতাংশ ভোট পেয়েছে।

যেসব প্রার্থী প্রদত্ত ভোটের ৫০ শতাংশের বেশি পেয়েছেন, তাদের আর দ্বিতীয় দফায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে না। এর মধ্যে রয়েছেন ল্য পেনের জোট থেকে ৩৯ জন, বাম জোট থেকে ৩২ জন, ম্যাখোঁর জোট থেকে দুজন, রক্ষণশীল এলআর থেকে একজন এবং অন্যান্য ডান দল থেকে দুজন।

বাকি ৫০১টি আসনের ভাগ্য নির্ধারিত হবে দুই থেকে চারজন প্রার্থীর মধ্যে।
ফরাসি পার্লামেন্টে ম্যাজিক ফিগার ২৮৯। অর্থাৎ যে দলের কাছে ২৮৯টি আসন থাকবে, তারাই সরকার গড়তে পারবে। আরএন এই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে দলটির নেতা জর্ডান বারডেলাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নিতে হবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁকে।

অতি ডানদের ঠেকাতে যা করছে বামপন্থী ও মধ্যপন্থীরা
এদিকে আরএনকে আটকাতে বামপন্থী ও মধ্যপন্থী দলগুলো একত্র হয়ে ‘রিপাবলিকান জোট’ তৈরি করেছে। এই জোটের ২০০ জনেরও বেশি প্রার্থী নিশ্চিত করেছেন, তারা দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে লড়বেন না, যাতে ডানপন্থীবিরোধী ভোটগুলো একই জায়গায় পড়ে।

আরএন নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও ২০২২ সালের তুলনায় তাদের আসন সংখ্যা দ্বিগুণ হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ঝুলন্ত পার্লামেন্টে তারাই আধিপত্য বিস্তার করবে। এর ফলে ২০২৭ সাল অবধি, অর্থাৎ প্রেসিডেন্ট হিসেবে ম্যাখোঁর মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত নীতির বাস্তবায়নে সমস্যা হতে পারে। এতে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ল্য পেনের জয়ী হওয়ার পথ প্রশস্ত হবে।

অন্যদিকে ম্যাখোঁ আগেই জানিয়েছেন, নতুন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রাজনৈতিক মতাদর্শের মিল না থাকলেও মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পদত্যাগ করবেন না তিনি। ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে অতি ডানপন্থীদের কাছে হারের পরই আগাম নির্বাচনের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছিলেন ম্যাখোঁ।

Share With:
Rate This Article
No Comments

Leave A Comment