Our Concern
Ruposhi Bangla
Hindusthan Surkhiyan
Radio Bangla FM
Third Eye Production
Anuswar Publication
Ruposhi Bangla Entertainment Limited
Shah Foundation
Street Children Foundation
June 23, 2024
HomeUncategorizedতিস্তায় নতুন খাল খনন, বাংলাদেশের চিঠির জবাব এখনো দেয়নি ভারত

তিস্তায় নতুন খাল খনন, বাংলাদেশের চিঠির জবাব এখনো দেয়নি ভারত

তিস্তায় নতুন খাল খনন, বাংলাদেশের চিঠির জবাব এখনো দেয়নি ভারত

অভিন্ন নদী তিস্তায় নতুন দুই খাল খননের বিষয়ে ভারতের কাছে তথ্য চেয়ে কূটনৈতিক পত্র পাঠিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু এখন পর্যন্ত ভারত ওই চিঠির কোনো জবাব দেয়নি। আজ বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন এ তথ্য জানান। সম্প্রতি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার অভিন্ন নদী তিস্তায় নতুন দুটি খাল খননের জন্য জমি বরাদ্দ দিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত বাংলাদেশকে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। এ বিষয়ে তথ্য চেয়ে ভারতের কাছে কূটনৈতিক পত্র পাঠিয়েছিল বাংলাদেশ।

এ বিষয়ে অগ্রগতি জানতে চাইলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, তিস্তার পানি প্রত্যাহারে পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে দুটি খাল খননের বিষয়ে জানতে চেয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া কূটনৈতিক পত্রের (নোট ভারবাল) জবাব এখনো দেয়নি ভারত।

আজ নয়াদিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচীও এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন। বাংলাদেশকে কোনো ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে কি না, জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রসচিবের মনোভাব সম্পর্কে তিনি জানেন। তবে বাংলাদেশের প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়েছে কি না, তা তাঁর জানা নেই।

সম্প্রতি ভারতের ইংরেজি দৈনিক দ্য টেলিগ্রাফের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, তিস্তা ব্যারাজ প্রকল্পের আওতায় আরও দুটি খাল খননের জন্য প্রায় এক হাজার একর জমির মালিকানা পেয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সেচ বিভাগ। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের সেচ মন্ত্রী পার্থ ভৌমিকের উপস্থিতিতে সেচ বিভাগকে জমির মালিকানা হস্তান্তর করেছে জলপাইগুড়ির জেলা প্রশাসন। এ জমির মাধ্যমে তিস্তার পূর্ব তীরে দুটি খাল খনন করবে প্রশাসন।

সৌদি ভিসা বাণিজ্যে বাংলাদেশিদের যুক্ততা নিয়ে অস্পষ্টতা
ঘুষের বিনিময়ে অবৈধ ভিসা বাণিজ্যের ঘটনায় সম্প্রতি সৌদি আরবে বাংলাদেশিদের গ্রেপ্তারের খবর জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির গণমাধ্যম। এ বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে সেহেলী সাবরীন বলেন, ভিসা বাণিজ্যে আট বাংলাদেশির মধ্যে ছয়জনের পরিচয় জানা গেছে। ইস্যুটি সৌদি সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আওতায় রয়েছে। সেখান থেকে কোনো তথ্য পেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানাবে, তারা আবার বাংলাদেশের দূতাবাসকে জানাবে। সৌদি আরব থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কোনো তথ্য আসেনি।

‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলে র‌্যাবকে ব্যবহার হচ্ছে না’
র‌্যাবের কর্মকাণ্ড নিয়ে জার্মানভিত্তিক সম্প্রচারমাধ্যম ডয়চে ভেলে এবং সুইডেনভিত্তিক নেত্র নিউজের যৌথ প্রতিবেদন বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ‘র‌্যাব দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছে। কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য র‌্যাবকে ব্যবহার করা হচ্ছে না। এ ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত।’

শান্তিপূর্ণ ভূরাজনীতির প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ বাংলাদেশ
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক ইস্যুকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের শান্তিপূর্ণ পররাষ্ট্র নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসবে না। বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ এবং সমৃদ্ধ ভূরাজনীতির প্রতি দৃঢ়ভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ থাকবে।

ইন্দো-প্যাসিফিক বিষয়ে বাংলাদেশের ধারণাপত্র তৈরির অগ্রগতি জানতে চেয়ে ব্রিফিংয়ে এক সাংবাদিক বলেন, বিদেশি সংবাদমাধ্যমে খবর এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শীতল সম্পর্ক কাটাতে ইন্দো-প্যাসিফিকে যোগ দিচ্ছে বাংলাদেশ। জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, এর মধ্য দিয়ে চীন বলয় থেকে বেরিয়ে ঢাকা যুক্তরাষ্ট্রের দিকে যে ঝুঁকছে, তা প্রমাণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে। জবাবে মুখপাত্র বলেন, পররাষ্ট্রনীতির মূলস্তম্ভ—‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সাথে বৈরিতা নয়’-এ থেকে কখনো বিচ্যুত হবে না বাংলাদেশ।

সেহেলী সাবরীন বলেন, ‘দেশের নিজস্ব অর্থনৈতিক স্বার্থ, উন্নয়নকে উৎসাহিত করা, জীবিকা ও মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন করা আমাদের পররাষ্ট্রনীতির প্রাথমিক ভিত্তি। প্রসঙ্গত, এসবের অনেকাংশ নির্ভর করে বঙ্গোপসাগরসহ বিভিন্ন সাগর ও মহাসাগরে মুক্ত ও অন্তর্ভুক্তিমূলক বাণিজ্যিক জাহাজ চলাচলের ওপর। উপকূলীয় রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ এ বিশাল বিশ্ব বাণিজ্য রুটের পাশের দেশ হিসেবে ভূরাজনৈতিকভাবে উন্নয়নে সাগর-মহাসাগরে যে কানেক্টিভিটি, তাতে সম্পৃক্ত থাকবে।’

এদিকে ইউক্রেন ইস্যুতে জাতিসংঘের প্রস্তাবে ভোটদানে বিরত থাকার ব্যাখ্যা দিয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সেহেলী সাবরীন। তিনি বলেন, যখনই জাতিসংঘে সুনির্দিষ্ট দেশভিত্তিক ভোট হয়, তখন বাংলাদেশ সাধারণত ভোটদানে বিরত থাকে। যেহেতু ইউক্রেন ও রাশিয়ার বিষয়টি অত্যন্ত সংবেদনশীল, সে জন্য প্রস্তাবে কী আছে, সেটা পরীক্ষা করে, তার ব্যাপারে মতামত জানানো হয়ে থাকে। ইউক্রেনে কথিত যুদ্ধাপরাধের তদন্তের মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানোর জন্য মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) জাতিসংঘে ওই ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভোটদানে বিরত ছিল বাংলাদেশ। প্রতিবেশী দেশ ভারতও ভোটদানে বিরত ছিল। কিন্তু প্রস্তাবটি শেষ পর্যন্ত পাস হয়েছে।

ট্রাম্পের গ্রেপ্তার যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়
প্রশ্নের জবাবে সেহেলী সাবরীন বলেন, ‘সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গ্রেপ্তারের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়। বিষয়টি তাদের (যুক্তরাষ্ট্রের) আদালতে বিচারাধীন। আমার মনে হয়, কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমাদের মন্তব্য করা সমীচীন হবে না।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি মামলায় গত মঙ্গলবার নিউইয়র্কের আদালতে হাজির হলে তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। ট্রাম্পই প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট যাকে ফৌজদারি অভিযোগে আদালতের মুখোমুখি হতে হলো।

সুত্র: দৈনিক প্রথম আলো

Share With:
Rate This Article
No Comments

Leave A Comment