Our Concern
Ruposhi Bangla
Hindusthan Surkhiyan
Radio Bangla FM
Third Eye Production
Anuswar Publication
Ruposhi Bangla Entertainment Limited
Shah Foundation
Street Children Foundation
June 22, 2024
Homeপ্রবাসনিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’

নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’

নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’

নিউইয়র্কের কুইন্সে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের প্রাণকেন্দ্র জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিটের নাম হলো বাংলাদেশের নামে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) কুইন্সের জ্যাকসন হাইটস ও এলমহার্স্ট এলাকার নতুন সিটি কাউন্সিল মেম্বার ও ভারতীয় বংশোদ্ভুত শেখর কৃষ্ণান উত্থাপিত বিলটি সিটি কাউন্সিলের মূল চেম্বারে ৪৭-০ ভোটে পাস হয়েছে। এর ফলে ৩৭ এভিনিউ থেকে ব্রডওয়ে পর্যন্ত ৭৩ স্ট্রিট এখন থেকে নাম ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’।

নিউইয়র্ক সিটির ডিপার্টমেন্ট অব পার্ক এবং ডিপার্টমেন্ট অব ট্রান্সপোর্টেশনের সহায়তায় আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ স্ট্রিটের সাইন বসানো হবে শিগগিরই।

দুপুর আড়াইটার দিকে নিউইয়র্ক সিটির ১২৯টি স্ট্রিটের পুনর্নামকরণ বিলটি মূল চেম্বারে ওঠে এবং এক এক করে ১২৯টি স্ট্রিটের নতুন নামকরণের প্রস্তাব শোনানো হয়। সিটির পাঁচ বরোতেই নতুন নামকরণ করা হয়েছে বিভিন্ন স্ট্রিট বা এভিনিউর। এইসব সড়কের নামকরণ হয়েছে বিভিন্ন কমিউনিটির নিজ দেশের বা বিশিষ্ট ব্যক্তির নামে। নিউইয়র্ক সিটিতে বাংলাদেশি ইমিগ্রান্টদের সবচেয়ে বড় ব্যবসাকেন্দ্র ও সাংস্কৃতিক প্রাণকেন্দ্র জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিটের এক ব্লকের নামকরণ করা হলো ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’।

এদিকে নিউইয়র্কে বাংলাদেশি শিক্ষক ও লেখক লিজি রহমানের ছেলের নামে এলমহার্স্টের কুইন্স বুলেভার্ড এবং ৫৫ রোডের কর্ণারের নামকরণ করা হয়েছে ‘আসিফ রহমান ওয়ে’। ২০০৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সাইকেল চালিয়ে বাসায় ফেরার পথে ট্রাককের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন আসিফ। এই রাস্তাটিরও নামকরণ করা হলো কাউন্সিল মেম্বার শেখর কৃষ্ণানের উদ্যোগেই।

এদিকে শুনানিতে ১২৯টি রাস্তার তালিকায় কুইন্স বরোতে ‘লিটল বাংলাদেশ ওয়ে’ নামে একটি রাস্তার নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল, পাশ হওয়া বিলেও সেই নামটি রয়ে গেছে। কিন্তু কোন কার প্রস্তাবে কোন এলাকায় কোন রাস্তার নাম ‘লিটল বাংলাদেশ ওয়ে’ হলো তা জানা যায়নি।

কাউন্সিল মেম্বার শেখর কৃষ্ণান বলেন, ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট’ নামকরণের মধ্য দিয়ে আমরা বাংলাদেশি কমিউনিটিকে সম্মাননা জানাচ্ছি। তারা এই এলাকার উন্নয়নে যে অবদান রেখে চলেছেন, তা নিউইয়র্ক সিটির উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। কারণ, জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি কমিউনিটির হার্ট। তারা এই এলাকাকে ব্যবসা বিস্তারের পাশাপাশি তাদের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে প্রাণবন্ত করে রাখছেন। বাংলাদেশিরা আমার কাউন্সিল ডিস্ট্রিক্টকে শক্তিশালী করে তুলছেন।

Share With:
Rate This Article
No Comments

Leave A Comment