Our Concern
Ruposhi Bangla
Hindusthan Surkhiyan
Radio Bangla FM
Third Eye Production
Anuswar Publication
Ruposhi Bangla Entertainment Limited
Shah Foundation
Street Children Foundation
June 13, 2024
Homeআন্তর্জাতিকপাকিস্তানে সাড়ে ৮টায় দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা

পাকিস্তানে সাড়ে ৮টায় দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা

পাকিস্তানে সাড়ে ৮টায় দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা

দিন দিন আরও চরম অর্থনৈতিক সংকটে পড়ছে পাকিস্তান। জ্বালানি সাশ্রয়ে এবার দেশটির সব দোকানপাট স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজনে হল, কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ করতে হবে রাত ১০টার মধ্যে।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা আসিফ ঘোষণা দিয়ে এসব তথ্য জানিয়ে দেন।

আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিসভার এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান খাজা আসিফ। এসময় সেখানে আরও উপস্থিত ছিলেন দেশটির জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক ফেডারেল মন্ত্রী শেরি রেহমান, ফেডারেল জ্বালানি মন্ত্রী খুররম দস্তগীর খান এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আসিফ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কেন্দ্রীয় সরকারের সব বিভাগে বিদ্যুতের ব্যবহার ৩০ শতাংশ কমানোর নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী অফিসে অপ্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ ব্যবহারের বিরুদ্ধে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন।

খাজা আসিফ সাংবাদিকদের বলেন, মন্ত্রিসভা দ্বারা অনুমোদিত সিদ্ধান্তের লক্ষ্য সংকটে থাকা দেশের প্রায় ৬২ বিলিয়ন অর্থ বাঁচানো এবং জ্বালানি আমদানি বিল কমাতে সহায়তা করা।

সাড়ে ৮টায় দোকানপাট বন্ধ, বিয়ের জন্য সময় রাত ১০টা।

মন্ত্রী বলেন, তার আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ফেডারেল মন্ত্রিসভার বৈঠকে কোনো প্রকার বিদ্যুৎ ব্যবহার ছাড়াই প্রতীকী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

আসিফ আরও ঘোষণা দিয়ে বলেন, ফ্যান উৎপাদনকারী কারখানাগুলো বিদ্যুতে চলে, সেগুলোও বন্ধ করে দেওয়া হবে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) অর্থায়নে ১ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলার বিলম্বিত হওয়ার পর খেলাপি হওয়ার আশঙ্কা প্রশমিত করতে এসব নিয়ম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে দেশটিতে। সরকারের তথ্য বলছে, গত ডিসেম্বরে ৫৮০ কোটি মার্কিন ডলারে নেমে এসেছে দেশটির রিজার্ভ।

গতবছর বন্যার মতো চরম দুর্যোগের কবলে পড়ে দেশটি। পরিবেশবিষয়ক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জার্মানওয়াচ সংকলিত গ্লোবাল ক্লাইমেট রিস্ক ইনডেক্স অনুসারে পাকিস্তান জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে চরম আবহাওয়ার অষ্টম ঝুঁকিপূর্ণ দেশ। বন্যা, খরা ও ঘুর্ণিঝড়ের কারণে গত কয়েক বছরে দেশটিতে অনেক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন আরও অনেকে। এছাড়া রাজনৈতিক গোলযোগের কারণে ব্যাহত হচ্ছে দেশটির অর্থনৈতিক কার্যক্রম।

সূত্র: জিও নিউজ, আল-জাজিরা

Share With:
Rate This Article
No Comments

Leave A Comment